NDTVBusinessहिन्दीMoviesCricketTechWeb StoriesHopFoodAutoSwasthLifestyleHealthবাংলাதமிழ்AppsArt
ADVERTISEMENT

দেখে নিন হবু কনের জন্য বিয়ের দিনের চেকলিস্ট

বিয়ের দিনে প্ল্যানিং মতোই সব কিছু এগোনোর পরেও শেষ মুহূর্তে ছোটখাটো পরিবর্তন হতেই পারে এবং সেটা স্বাভাবিক

বিয়ের আগে চেকলিস্ট অনুসারে সমস্তটা মিলিয়ে নিন

মাসের পর মাস প্ল্যানিং এর পর শেষমেশ আপনার বিয়ের শুভক্ষণ উপস্থিত। আপনার বিশ্বাস না হলেও হ্যাঁ, এটাই সত্যি। শেষমেশ আপনারও বিয়ে হতে চলেছে। এতদিন সবচেয়ে বেশী পরিশ্রম হয়েছে বিয়ের প্ল্যানিং করতে- যা এতদিনে শেষ হয়েছে এবং এখন আপনার হাতে যা সময় আছে তা শুধুমাত্র আপনার জীবনের সেরা সময় করে তোলা বাকী। হবু কনে হিসাবে আপনি যতই উত্তেজিত হন না কেন, আপনার জীবনের বড় দিনটার জন্য আপনার লিস্টের সব কাজ কিন্তু আগে থেকে এবার সেরে নেওয়া উচিত।  
বিয়ের প্ল্যানিং অত্যন্ত জটিল এবং সময় সাপেক্ষ কাজ। এর জন্য অনেক সময় এবং ধৈর্য প্রয়োজন। ভারতে বিয়ে শুধুমাত্র দুটো মানুষের মধ্যে নয়, দুটো পরিবারের মধ্যে হয়। তাই পরিবারের সকলের ভাললাগা খারাপ লাগা এবং মতামত একটা বিয়ের অনুষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত।
বিয়ের প্ল্যানিং এর দায়িত্ব পরিবারের ওপর চাপিয়ে দিলেও আপনি কিন্তু পুরোপুরি নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন না। কিম্বা পারেন যখন   আপনি জানতে পারেন সব কিছু নিয়ম মাফিক চলছে। এর জন্যই বিয়ের দিনের চেকলিস্ট প্রয়োজন হয়। বিয়ের আগেই চেক্লিস্টের এই কাজগুলো সেরে নেওয়ার চেষ্টা করুন যাতে বিয়ের দিন আনন্দ ছাড়া আর কোনও বাড়তি চিন্তা না থাকে।  
1. আগে থেকে বিয়ের অনুষ্ঠানে সারাদিন কী কী পরবেন ঠিক করে গুছিয়ে রাখুন  


বিয়ের দিন সব শেষে যে সমস্যায় পরতে হয় সেটা হল জামাকাপড়ের সমস্যা। এটা সাধারণ কোনও পার্টি নয় যেখানে আপনি একটা পোশাক পছন্দ না হলে আর একটা পরতে পারবেন। আপনার বিয়েতে এতো মানসিক চাপ নেওয়ার প্রয়োজন নেই। বিয়ের কমপক্ষে এক সপ্তাহ আগে বিয়ের সমস্ত পোশাক একবার পরে দেখে গুছিয়ে রাখুন। শুধু পোশাকই নয়, জুতো, গয়না, চুলের অ্যাক্সেসরি- সমস্ত কিছুই পরে দেখুন।সমস্তটা একসঙ্গে পরে কেমন লাগছে সেটা ট্রাই করে দেখুন। যদি মানানসই না হয় তবেও আপনার হাতে এক সপ্তাহ সময় থাকবে তার বদলে অন্য কিছু পরা যায় কি না তা দেখার এবং জোগাড় করার জন্য।  
2. আপনার ওয়েডিং প্ল্যানারের সঙ্গে যোগাযোগ করে সব কিছু মিলিয়ে দেখে নিন
আপনি যদি কোনও প্রফেশনাল ওয়েডিং প্ল্যানারের সাহায্য নিয়ে থাকেন তবে অবশ্যই আপনার কাছের কোনও দায়িত্ববান মানুষকে তাঁদের সঙ্গে ক্রমাগত যোগাযোগ রাখতে বলবেন। বাইরে থেকে আশা আপনার অতিথিদের আসার এবং যাওয়ার সময় সম্পর্কে তাঁদের ওয়াকিবহাল থাকতে হবে। ওয়েডিং প্ল্যানারের কাছে যেন তাঁদের নম্বর থাকে ষে বিষয়ে খেয়াল রাখবেন। তাছাড়া শুরু থেকেই আপনার বারবার ওয়েডিং প্ল্যানারের সঙ্গে কথা বলতে হবে যাতে তাঁদের কাছে সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য থাকে।  আর যদি আপনার কোনও কিছুর ঘাটতি থেকে গেছে বলে মনে হয় তবে তবে বিয়ের অল্প কয়েকদিন আগে হলেও ওয়েডিং প্ল্যানারদের সঙ্গে একটা কুইক রিক্যাপ মিটিং এর আয়োজন করে তাঁদের সঙ্গে সমস্ত প্রয়োজনীয় বিষয়ে আলোচনা করে নিন।  
3. বিয়ের আগেই আপনার সমস্ত কাজ সেরে রাখুন
আপনার যদি বিয়ের দিনেই শুধু ছুটি থাকে, তাঁর আগে বা পরে নয় তবে খেয়াল রাখবেন বিয়ের আগে যেন আপনার সমস্ত কাজ শেষ হয়ে যায়। বিয়ের সময় যেন আপনার গুরুত্বপূর্ণ কোনও কাজের ফোন না আসে। আপনার বাকী থাকা সমস্ত কাজ শেষ করে, ওই কয়েকদিনের কাজের দায়িত্ব অন্য কারো হাতে তুলে দিয়ে আপনি যেন বিয়ের কয়েকটা দিন শুধুমাত্র আনন্দই করতে পারেন- সে বিষয়ে খেয়াল রাখবেন।
Comments সব শেষে এটাই বলার, বিয়ের দিনে প্ল্যানিং মতোই সব কিছু এগোনোর পরেও শেষ মুহূর্তে ছোটখাটো পরিবর্তন হতেই পারে এবং সেটা স্বাভাবিক। যাই হোক, বিয়েতে শুধুই আনন্দ করুন। মনে রাখুন, আপনার কাজ হল বিয়ে করা। বাড়িতে বসে একটা দীর্ঘশ্বাস নিন, আর বিয়ের এমন অভিজ্ঞতা তৈরি করুন যা আপনি সারা জীবন মনে রাখতে পারবেন।

 




স্টাইল সংক্রান্ত সাম্প্রতিক টিপস, সৌন্দর্য, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ আর সম্পর্কের বিষয় জানতে লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

ADVERTISEMENT